বিএনপি নেতা ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম মোরশেদ খান এবং তাঁর স্ত্রী নাসরিন খান ও ছেলে ফয়সাল মোরশেদ খানের বিরুদ্ধে অর্থ পাচার মামলায় পুনঃ তদন্তে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বিভাগ বেঞ্চ আজ বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন।

আদালতে মোরশেদ খানের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী রোকন উদ্দিন মাহমুদ ও আহসানুল করীম। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান।

খুরশীদ আলম খান সাংবাদিকদের বলেন, এখন এ মামলার পুনঃ তদন্ত চলতে বাধা নেই।

ওই ব্যাংকে তাঁদের হিসাবে ১৬ মিলিয়ন হংকং ডলার রয়েছে বলে জানা যায়। তবে বিষয়টি এখনো তদন্তাধীন।

এর আগে ৬ মার্চ শুনানি শেষে আদেশের জন্য আজ দিন ধার্য ছিল।

অর্থ পাচারের অভিযোগে ২০১৩ সালে মোরশেদ খান, তাঁর স্ত্রী ও ছেলেসহ তিনজনের নামে একটি মামলা হয়। এ মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৫ সাল পর্যন্ত তাঁদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ ছিল। এ মামলায় ২০১৫ সালে দুদক চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়। এরপর আদালত তাঁদের অব্যাহতি দিলে মোরশেদ খানসহ তিনজনের অ্যাকাউন্ট খুলে দেওয়া হয়। আদালতের অব্যাহতি আদেশের পর ঢাকার বিশেষ আদালতে দুদকের পক্ষ থেকে নারাজি আবেদন করা হলে সেটি খারিজ হয়ে যায়। বিচারিক আদালতের এ খারিজ আদেশের বিরুদ্ধে দুদক হাইকোর্টে একটি রিভিশন আবেদন করে। এ আবেদনের শুনানি নিয়ে ২০১৬ সালের ৫ জুন ব্যাংক হিসাব জব্দের আদেশ দিয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট।

২০১৬ সালের ৯ নভেম্বর দেওয়া রায়ে মামলাটি পুনঃ তদন্তের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। এর বিরুদ্ধে মোরশেদ খান আপিল বিভাগে আবেদন করেন। আপিল বিভাগ আজ সেই আবেদন খারিজ করে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রাখেন।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here