তুরাগে ট্রলারডুবি: ৫ জনের লাশ উদ্ধার

রাজধানীর অদূরে আমিনবাজার এলাকায় তুরাগ নদীতে নারী ও শিশুসহ ১৮ জন যাত্রী নিয়ে একটি ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটেছে। শনিবার বিকাল সোয়া ৫টা পর্যন্ত মোট ৫ জনের লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল।

মারা যাওয়া পাঁচজনের মধ্যে একজন নারী ও বাকি ৪ জন শিশু। এ দুর্ঘটনায় এখনো পর্যন্ত ২ জন নিখোঁজ রয়েছেন। তাদের উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ডুবুরি দল ও সাভার ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা কাজ করছেন। তবে এখনো পর্যন্ত তাদের বিস্তারিত নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

শনিবার বিকাল সোয়া ৫টায় ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার খালেদা ইয়াসমিন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, শনিবার সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে আমিনবাজার এলাকায় তুরাগ নদীতে একটি যাত্রীবাহী ট্রলারডুবির খবর পেয়ে সেখানে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ডুবুরি দলকে পাঠানো হয়। পরে সেখানে উদ্ধারে অংশ নেয় সাভার ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত- টানা অভিযান চালিয়ে নিখোঁজ ৭ জনের মধ্যে ৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এখনো দুইজন নিখোজ রয়েছেন। তাদেরকে উদ্ধারের জন্য অভিযান চলমান রয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, আজ (শনিবার) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে তুরাগ নদীতে যাত্রীবাহী একটি ট্রলারের সঙ্গে বুলগ্রেটের সজোরে ধাক্কা লাগলে এ ঘটনা ঘটে। আমরা সকাল ৮টা ৫০ মিনিটের দিকে এ দুর্ঘটনার খবর পাই। এরপর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে ৯টা ৫০ মিনিটের দিকে উদ্বার কাজ শুরু করেন।

এদিকে ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের ডিউটি অফিসার লিমা খানম জানান, আমরা স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে জানতে পেরেছি, ওই যাত্রীবাহী ট্রলারে নারী, শিশুসহ মোট ১৮ জন ছিলেন। তাদের মধ্যে সাতজন নিখোঁজ ছিলেন।  বাকিরা সাঁতরে তীরে উঠে যান।

ফায়ার সার্ভিসের এই কর্মকর্তা জানান, দুর্ঘটনাকবলিত যাত্রীবাহী ট্রলার ও বুলগ্রেটটি শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। দুপুর ১টা ১৩ মিনিটের দিকে একটি শনাক্ত করা হয়। বিস্তারিত পরে জানানো হবে। ইতোমধ্যে উদ্ধার হওয়া ৫ জনের লাশ নৌপুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

এই দুর্ঘটনায় কোনো তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে কি না- জানতে চাইলে লিমা খানম বলেন, অভিযান শেষে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন। পরবর্তীতে এ বিষয়ে জানানো হবে।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here