বিয়ের নামে প্রতারণা, কারাগারে নারী

চট্টগ্রামে একাধিক ব্যক্তিকে বিয়ে করে প্রতারণার অভিযোগে এক নারীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। তার নাম নাছমিন আক্তার সিমু।

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শফিউদ্দীনের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে আদালত শুনানি শেষে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন।

নাছমিন আক্তার সিমু নামে আত্মসমর্পণ করলেও তার নাম কখনো মিনু, কখনো সুমি, কখনো ফাতেমা আবার কখনো রোমানা নামে পরিচিত তিনি। এসব নামের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যেমন রয়েছে; তেমনি রয়েছে একাধিক নামে একাধিক জাতীয় পরিচয়পত্র এবং নাগরিক সনদপত্রও।

আদালত সূত্র জানায়, গত ৮ সেপ্টেম্বর প্রতারক মিনু আক্তার, মোস্তফা জামিল (৩৭) ও রাশেদকে (৩৯) আসামি করে প্রবাসী ইমাম হোসেন আদালতে মামলা করেন। মামলাটি বায়েজিদ থানাকে এজাহার হিসেবে নেওয়ার জন্য আদালত আদেশ দিয়েছিলেন। ওই মামলায় তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী গোলাম মাওলা মুরাদ যুগান্তরকে বলেন, মিনু আক্তার কয়েকটি এনআইডি কার্ড এবং বিভিন্ন নামে নাগরিক সনদ বানিয়ে বৈবাহিক প্রতারণাসহ ফেসবুক, ইমো, হোয়াটসঅ্যাপে বিভিন্ন নামে অ্যাকাউন্ট খুলে দেশি ও প্রবাসীদের সঙ্গে প্রতারণা করেছে। এক নারীর অন্তত ৪টি ভিন্ন নামের পরিচয়পত্র, তিনজন বৈধ স্বামী, বৈবাহিক সম্পর্ক বলবত থাকা অবস্থায় অন্য পুরুষকে বিয়ের ডকুমেন্ট আদালতের নজরে আনার জন্য দাখিল করা হয়েছিল। তার জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here