নানার একাধিকবার ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা নাতনী

ঢাকার ধামরাই উপজেলার চৌহাট ইউনিয়নে বৃদ্ধ নানা সফুর উদ্দিনের (৬০) কুকর্মে রশিকার হয়ে প্রতিবন্ধী নাতনী অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার অভিযোগ ওঠেছে।

এ ঘটনায় সাজেদা বেগম নামে তার এক সহযোগীকে আটক করেছে কাওয়ালীপাড়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ। শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার চৌহাট ইউনিয়নের দ্বিমুখা পূর্বপাড়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

এর আগে বৃহস্পতিবার এ ঘটনা জানাজানি হলে রাতেই ধামরাই থানায় ওই নানা ও তার এক সহযোগীকে আসামি করে একটি মামলা করা হয়েছে।

মামলার আসামিরা হলেন- ধামরাই উপজেলার চৌহাট ইউনিয়নের দ্বিমুখা গ্রামের মৃত চান মিয়ার ছেলে সফুর উদ্দিন ও একই এলাকার মোয়াজ্জেমের স্ত্রী সাজেদা বেগম।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কয়েকমাস আগে নাতনীর বাড়িতে নিয়মিত যাতায়াতকালে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন ওই নানা। এতে সে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। সম্প্রতি ওই পরিবারের লোকজন মেয়ের শরীরের গঠন পরিবর্তন দেখতে পান।

পরে পরিবারের লোকজন তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান এবং পরীক্ষা করানো হলে তার গর্ভকাল ধরা পড়ে। পরে ওই মেয়েকে জিজ্ঞাসা করলে সে ওই নানার কথা জানিয়ে দেয়।

এদিকে এ ঘটনা জানাজানি না করার জন্য মেয়েকে ভয়ভীতি দেখান অপর আসামি। পরে পরিবারের লোকজন থানায় অভিযোগ করেন।

এ বিষয়ে কাওয়ালীপাড়া তদন্ত কেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মনির হোসেন সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, রাতে প্রতিবন্ধী মেয়ে নানার লালসার শিকার হয়ে ৫মাসের অন্তঃসত্ত্বা হয়েছেন। এমন একটি লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর অভিযান চালিয়ে এক নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। তাকে ধরতে অভিযান চালানো হচ্ছে।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here