হোম খেলাখেলাধুলা করোনায় আক্রান্ত সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

করোনায় আক্রান্ত সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

কর্তৃক স্টাফ রিপোর্টার
22 ভিউস

সোমবার সকালে সৌরভের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। আবার পরীক্ষা করা হয়। সেটাও পজিটিভ আসায় সোমবার রাতেই দক্ষিণ কলকাতার একটি হাসপাতালে ভর্তি হন সৌরভ।

তবে বোর্ড সভাপতি করোনায় আক্রান্ত হলেও তার স্ত্রী ডোনা ও মেয়ে সানার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। সৌরভ ওমিক্রন ভাইরাসে আক্রান্ত কি না, তা এখন পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

সৌরভ চাইছেন বাড়িতেই তার চিকিৎসা হোক। কিন্তু বিষয়টি এখন চিকিৎসকদের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করছে। এর আগে সৌরভের দাদা স্নেহাশিসের করোনা হয়েছিল। তখন সৌরভ বাড়িতে নিভৃতবাসে ছিলেন। তার মায়েরও করোনা হয়। সৌরভের অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে বলে হাসপাতাল থেকে জানানো হয়েছে।

 

ভারতের সাবেক ক্রিকেট অধিনায়ক এবং বর্তমানে বোর্ড সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় করোনায় আক্রান্ত।

 

সোমবার সকালে সৌরভের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। আবার পরীক্ষা করা হয়। সেটাও পজিটিভ আসায় সোমবার রাতেই দক্ষিণ কলকাতার একটি হাসপাতালে ভর্তি হন সৌরভ।

তবে বোর্ড সভাপতি করোনায় আক্রান্ত হলেও তার স্ত্রী ডোনা ও মেয়ে সানার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। সৌরভ ওমিক্রন ভাইরাসে আক্রান্ত কি না, তা এখন পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

সৌরভ চাইছেন বাড়িতেই তার চিকিৎসা হোক। কিন্তু বিষয়টি এখন চিকিৎসকদের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করছে। এর আগে সৌরভের দাদা স্নেহাশিসের করোনা হয়েছিল। তখন সৌরভ বাড়িতে নিভৃতবাসে ছিলেন। তার মায়েরও করোনা হয়। সৌরভের অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে বলে হাসপাতাল থেকে জানানো হয়েছে।

 

নিজে থেকে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন বিরাট কোহলি। আমিরাতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চলার সময় তিনি এই ঘোষণা করেন। তিনি বলেছেন, বোর্ডকে আগে সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন, রোহিত শর্মাকেও জানিয়েছিলেন। সেইসময়ের কোচ রবি শাস্ত্রীর সঙ্গেও তার কথা হয়েছিল। বিরাট জানিয়ে দেন, তিনি টেস্ট এবং একদিনের ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব করবেন।

 

সোমবার সকালে সৌরভের শরীর খারাপ লাগে। তাই তিনি তার টিভি শো-র শুটিং বন্ধ করে দেন। তবে তার আগে তিনি বিজ্ঞাপনের শুটিং করেছেন। তিনি সম্প্রতি দেশ ও বিদেশের বেশ কিছু শহরে ঘুরেছেন। শেষ গেছিলেন মুম্বইতে। সেখান থেকেই তিনি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন কি না, তা অবশ্য জানা যাচ্ছে না।

এই বছরের শুরুতে সৌরভ হৃদরোগে আক্রান্ত হন। তার বুকে স্টেন্ট বসে। পরে তিনি স্বাভাবিক কাজ শুরু করেন। দুবাইতে আইপিএলের খেলা দেখতেও গেছেন।

কিছুদিন আগে বিসিসিআই-প্রধান সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন, তিনি বিরাট কোহলিকে টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব ছাড়তে নিষেধ করেছিলেন। কিন্তু বিরাট শোনেননি। সাদা বলের ক্রিকেট ফরম্যাটে একজন অধিনায়কই থাকা উচিত। তাই কোহলিকে সরিয়ে রোহিতকে অধিনায়ক করা হয়েছে। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের আগে সাংবাদিক সম্মেলনে কোহলি জানিয়ে দেন, তিনি নিজে থেকে টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব ছেড়েছেন। তিনি তার সিদ্ধান্তের কথা বোর্ডকে আগে জানিয়েছিলেন। কোহলির দাবি, তখন সকলেই সিদ্ধান্তের প্রশংসা করেছিলেন এবং বলেছিলেন, ভবিষ্যতের কথা ভেবে ঠিক কাজ করেছেন। কেউই তাকে অধিনায়কত্ব ছাড়তে নিষেধ করেননি। অধিনায়কত্ব নিয়ে বোর্ডের তরফে যা বলা হচ্ছে তা ঠিক নয়।

কোহলির এই দাবির পর গণমাধ্যমে প্রশ্ন উঠেছে, কে ঠিক বলছেন, সৌরভ না কোহলি?

এখানেই থামেননি কোহলি। তিনি রাখঢাক না করে জানিয়েছেন, তাকে একদিনের ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব থেকে সরানোর মাত্র দেড় ঘণ্টা আগে জানানো হয়েছিল। গত ৮ ডিসেম্বর দল নির্বাচন নিয়ে বৈঠকের সময় তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। নির্বাচক কমিটির চেয়ারম্যান প্রথমে দলগঠন নিয়ে আলোচনা করেন। ফোন রাখার আগে তিনি বলেন, পাঁচ নির্বাচক একমত হয়েছেন, একদিনের ক্রিকেটে তাকে আর অধিনায়ক রাখা হবে না। কোহলি জানিয়ে দেন, ঠিক আছে।

এরপরই কোহলিকে সরিয়ে রোহিত শর্মাকে একদিনের ক্রিকেটে অধিনায়ক ঘোষণা করে বোর্ড। যে পাঁচ নির্বাচক এই সিদ্ধা্ন্ত নিয়েছেন, তারা হলেন চেতন শর্মা, অ্যাবে কুরুভিল্লা, দেবাশিস মোহান্তি, হরবিন্দর সিং এবং সুনীল জোশি।

 

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের জরিমানা। জমি-মামলায়। বর্তমানে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও তার সংস্থাকে ১০ হাজার টাকা করে দিতে হবে। জরিমানা করা হয়েছে রাজ্য সরকারকেও। তাদের জরিমানার পরিমাণ বেশি। ৫০ হাজার টাকা। আর সৌরভের সংস্থাকে জমি দিয়েছিল হিডকো। তারা নিয়ম না মেনে জমি দিয়েছিল বলে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে কলকাতা হাইকোর্ট।

প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল ও বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বেঞ্চ সোমবার এই রায় দিয়েছে। তারা বলেছেন, সৌরভকে আইন মেনে জমি দেয়া হয়নি। এই নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ও আছে। সেটাও মানা হয়নি। তাই এই জরিমানা করা হলো।

 

সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় কলকাতায় স্কুল তৈরির জন্য জমি চেয়েছিলেন। তাকে আইসিএসসি স্কুল তৈরির জন্য নিউ টাউনে জমি দেয়া হয়। সেই জমি নিয়েই মামলা হয়েছিল। মামলাকারীর অভিযোগ ছিল, নিয়ম না মেনে সৌরভকে জমি দেয়া হয়েছে এবং তা অনেক কম দামে দেয়া হয়েছে। বিতর্ক শুরু হওয়ার পর সৌরভ অবশ্য জমি ফেরত দিয়ে দিয়েছেন।

 

কোনো কিছু আগাম ভেবে না নেওয়াই ভালো। রাজ্যপালের সঙ্গে এটি ছিল নেহাতই সৌজন্য সাক্ষাৎ। ধনখড় পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল হয়ে আসার পর থেকে এখনো পর্যন্ত ইডেন গার্ডেন্স যাননি। তিনি সেখানে যেতে চেয়েছিলেন এবং সৌরভের সঙ্গেও দেখা করার ইচ্ছে জানিয়েছিলেন। তাই সৌরভই এসেছেন রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করতে।

যদিও সৌরভের এই যুক্তি অনেকেরই যথেষ্ট বিশ্বাসযোগ্য মনে হয়নি। কারণ, জগদীপ ধনকড় পশ্চিমবঙ্গেররাজ্যপাল নিযুক্ত হয়েছেন ২০১৯ সালের ৩০ জুলাই। মানে মাত্র দেড় বছর। এখনো এতটাও সময় ফুরিয়ে যায়নি, যে তিনি ইডেন গার্ডেন্স দেখতে ব্যস্ত হয়ে পড়বেন। ফলে জল্পনা শুরু হয়ে যায় যে তবে কি সৌরভ গাঙ্গুলি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন,‌ যে গুজব বেশ কিছুদিন ধরেই হাওয়ায় ভাসছে?‌ তিনিই কি তবে বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী হতে চলেছেন, যে সম্ভাবনার কথা আগেও একাধিকবার শোনা গেছে?‌ এই মুহূর্তে, যখন এই রাজ্যে বিজেপির কোনও নেতাকেই মুখ্যমন্ত্রী পদের যোগ্য দাবিদার বলে নজরে পড়ছে না, সৌরভের এই রাজভবন যাওয়া রীতিমত আলোড়ন ফেলেছে। এতটাই, যে বামফ্রন্ট ক্ষমতায় থাকার সময় রাজ্যের এক বাম নেতা, যিনি সৌরভের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত, তিনি কোনও মন্তব্য করতেই রাজি হলেন না।

 

 

এ/আর/এস……

০ মন্তব্য
0

সম্পর্কিত পোস্ট

মতামত দিন