করোনা রোগীদের ডায়েট চার্ট

0
61

সারাবিশ্বেই দাপিয়ে বেড়াচ্ছে করোনাভাইরাস সংক্রমণের সঙ্গে লড়াই করতে হলে বাড়াতে হবে প্রতিরোধ ক্ষমতা বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভ্যাকসিন শুধু ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধের জন্য যথেষ্ট নয়, সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে হলে স্বাস্থ্যকর খাবারও প্রয়োজন 

করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে চিকিৎসকদের পরামর্শে বাড়িতে রয়েছেন। তাদের জন্য ডায়াটেশিয়ানদের মতে ডায়েট চার্ট এরকম হওয়া দরকার।   

সকালে 
ঘুম থেকে উঠে চা, দুটি বিস্কুট, সাধারণ খাবার, দুটি পাউরুটি মাখন বা জ্যামসহ, একটি কলা, এক কাপ দুধ, একটি  ডিম সেদ্ধ অথবা হাতে গড়া রুটি, নানারকম সবজি দিয়ে তরকারি, অথবা দুধ কর্নফ্লেক্স ,কর্নফ্লেক্সের বদলে কেউ পছন্দ করে মুড়ি। এরপর ফল খেতে পারেন। পেয়ারা অথবা তরমুজ অথবা আপেল অথবা পাকা পেঁপে খেতে পারেন।  

দুপুরে   
দুপুরের খাবারে পরিমাণ মতো ভাত, এক বাটি ডাল, তরকারি নানারকম সবজি খান। যেমন গাজর, বরবটি, পটল, বাঁধাকপি ইত্যাদি। তরকারির মধ্যে কিছু নিউট্রিলা চাঙ্ক দিলে ভালো। পাতলা মাছের ঝোল, ঘরে পাতা টক দই। 

চা বিস্কুট

চা বিস্কুট খেতে পারেন। এরপর অঙ্কুরিত ছোলা একটু  মুখরোচকভাবে খান। কারণ, এই সময় মুখে স্বাদ থাকে না। শশা, টমেটো, পেঁয়াজ কুচি দিয়ে, সামান্য বিট লবণ, লেবুর রস ছড়িয়ে খেতে পারেন। কোনোদিন অঙ্কুরিত মুগ খেতে পারেন ছোলার বদলে। কোনোদিন মুড়ি, ছোলা ভেজানো।  

রাতের খাবার
রাতে তাড়াতাড়ি খাবার খেয়ে নেবেন। গরম স্যুপ, দুটি হাতে গড়া রুটি, পাতলা চিকেনের ঝোল (দুপিস চিকেনসহ), ডাল, তরকারি। চিকেনের বদলে পণীর অথবা নিউট্রিলার তরকারি। কোনোদিন মুখ বদলের জন্য পাতলা খিচুড়ি খাবেন রুটির বদলে।     

ঘুমানোর আগে
এক কাপ দুধ অথবা স্যুপ খাবেন। সারাদিনে প্রচুর পরিমাণে পানি খাবেন। উষ্ণ পানি খেতে পারেন। সব অল্প তেলে রান্না হবে। ঝাল মশলা একদম নয়। ডায়াবেটিস, কিডনি বা অন্য কোনো রোগের সমস্যা থাকলে সেই অসুখের নির্ধারিত খাদ্যবিধি মেনে চলবেন।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here